চিত্রা এক্সপ্রেস ট্রেনের সময়সূচী ২০২৩ | ভাড়ার তালিকা [Update 2023]

আজকে আমরা এই প্রবন্ধের মাধ্যমে আপনাদের জানিয়ে দেবো চিত্রা এক্সপ্রেস ট্রেনের সময়সূচী ২০২৩ এবং চিত্রা এক্সপ্রেস ট্রেনের ভাড়া। বাংলাদেশের ঢাকা থেকে খুলনা পর্যন্ত রেল পথে চলাচলকারী একটি আন্তঃনগর ট্রেন হলো চিত্রা এক্সপ্রেস। বাংলাদেশে ভ্রমণের জন্য জনপ্রিয় ট্রেন গুলি হলো আন্তঃনগর ট্রেন। এই ট্রেনগুলো খুবই আরামদায়ক এবং স্বল্প খরচের মধ্যে ভ্রমণের জন্য উপযুক্ত।

বাংলাদেশ রেলওয়ে কর্তৃক পরিচালিত চিত্রা এক্সপ্রেস ট্রেনের নম্বর হলো ৭৬৩ এবং ৭৬৪। এই ট্রেনটির মধ্যে আপনারা যাত্রার জন্য প্রয়োজনীয় সমস্ত কিছু উপকরণ দেখতে পাবেন। ট্রেনটিতে মোট ১২ টি বগি আছে এবং এই ১২টি মিলিয়ে মোট ৭৮১টি সিট রয়েছে, চিত্রা এক্সপ্রেস ট্রেনটিতে উৎসবের মরশুমে অর্থাৎ ঈদ বা পার্বনের সময় ট্রেনটির মধ্যে আলাদা করে বডি যুক্ত করা হয় যাতে করে মানুষের ভিড় এড়ানো যায়।

আপনি যদি ঢাকা থেকে খুলনা অথবা খুলনা থেকে ঢাকা পর্যন্ত ভ্রমণের জন্য ট্রেন মাধ্যমকে বেছে নেন তাহলে আপনাকে অবশ্যই চিত্রা এক্সপ্রেস ট্রেনের সময়সূচী ২০২৩ সম্পর্কে একটা ধারণা থাকা আবশ্যিক। কারণ সময় মতো আপনি স্টেশনে না পৌঁছালে ট্রেনটি ধরতে পারবেন না, তাই আমরা চিত্রা এক্সপ্রেস ট্রেনের সময়সূচী ২০২৩ এর একটি সুন্দর বিস্তারিত তালিকা আপনাদের সামনে উপস্থাপন করেছি তালিকাটি ভালোভাবে দেখে নেবেন।

চিত্রা এক্সপ্রেস ট্রেনের সময়সূচী ২০২৩

ভ্রমণের জন্য সবথেকে সস্তায় এবং আরামদায়ক মাধ্যম হলো ট্রেন। বেশিরভাগ মানুষই কাজের জন্য অথবা ভ্রমণের জন্য ট্রেনে চাপেন, সেইসব মানুষদের সুবিধার জন্য চিত্রা এক্সপ্রেস ট্রেনের সময়সূচী ২০২৩ সম্পর্কে অবশ্যই জানতে হবে, না হলে ভ্রমণের সময় আপনাকে হয়তো অসুবিধায় পড়তে পারেন।

চিত্রা এক্সপ্রেস ট্রেনটি সন্ধ্যা ০৭:০০ মিনিটে বাংলাদেশের রাজধানী ঢাকা থেকে খুলনার দিকে রওনা দেয় এবং ভোর ০৩:৪০ মিনিটে ট্রেনটি খুলনা স্টেশনে পৌঁছায়। একইভাবে চিত্রা এক্সপ্রেস খুলনা স্টেশন থেকে সকাল ০৯:০০ মিনিটে তার গন্তব্য ঢাকার উদ্দেশ্যে যাত্রা শুরু করে এবং বিকেল ০৫:৫৫ মিনিটে ট্রেনটি ঢাকা স্টেশনে পৌঁছায়।  [সময়সূচীর অফিসিয়াল উৎস]

স্টেশনের নামছাড়ায় সময়পৌছানোর সময়ছুটির দিন
ঢাকা টু খুলনা (৭৬৩)১৯ঃ০০০৩ঃ৪০সোমবার
খুলনা টু ঢাকা (৭৬৪)০৯ঃ০০১৭ঃ৫৫সোমবার

পঞ্চগড় এক্সপ্রেস ট্রেনের সময়সূচী ২০২৩ 

আপনাদের সুবিধার জন্য আমরা চিত্রা এক্সপ্রেস ট্রেনের সময়সূচী ২০২৩ এর একটি তালিকা আপনাদের সামনে উপস্থাপন করেছি যাতে করে আপনাদের চিত্রা এক্সপ্রেস ট্রেনের সময়সূচী জানতে সুবিধা হয়।

 চিত্রা এক্সপ্রেস ট্রেনটি প্রত্যেক সপ্তাহের সোমবার দিন যাত্রা বন্ধ থাকে। 

চিত্রা এক্সপ্রেস ট্রেনের ভাড়া তালিকা ২০২৩

ট্রেনে করে ভ্রমণ করতে গেলে আমাদের সকলকেই ট্রেনের টিকিট কাটতে হয় আপনি যদি ঢাকা থেকে খুলনা পর্যন্ত চিত্রা এক্সপ্রেস ট্রেনের মাধ্যমে ভ্রমণ করতে চান তাহলে অবশ্যই আপনাদের চিত্রা এক্সপ্রেস ট্রেনের ভাড়া সম্পর্কে জানা জরুরী। ট্রেনটির মধ্যে অনেকগুলি শ্রেণীবিন্যাস আছে যেমন জেনারেল, এসি চেয়ার, স্নিগ্ধা তাই এই শ্রেণীবিন্যাস অনুযায়ী চিত্রা এক্সপ্রেস ট্রেনের ভাড়া বিভিন্ন রকম হয়। আসুন জেনে নিন চিত্রা এক্সপ্রেস ট্রেনের ভাড়া কত।

স্টেশন নামশোভন চেয়ারস্নিগ্ধাএসি বার্থ
নোয়াপাড়া৪৬৫ টাকা৭৭৫ টাকা১৩৯০ টাকা
যশোর৪২০ টাকা৭০০ টাকা১২৬০ টাকা
কোটচাঁদপুর৪০৫ টাকা৬৭০ টাকা১২০৫ টাকা
দর্শনা৩৭০ টাকা৬১৫ টাকা১১১০ টাকা
চুয়াডাঙ্গা৩৬০ টাকা৬০০ টাকা১০৭৫ টাকা
আলমডাঙ্গা৩৪৫ টাকা৫৭৫ টাকা১০৩৫ টাকা
পোড়াদহ৩৩৫ টাকা৫৫৫ টাকা৯৯৫ টাকা
মিরপুর৩২৫ টাকা৫৪০ টাকা৯৭৫ টাকা
ভেড়ামারা৩২০ টাকা৫৩০ টাকা৯৫৫ টাকা
ঈশ্বরদী২৭০ টাকা৪৫০ টাকা৮১০ টাকা
চাটমোহর২৫০ টাকা৪১৫ টাকা৭৫০ টাকা
বড়াল ব্রিজ২৪৫ টাকা৪০৫ টাকা৭২৫ টাকা
উল্লাপাড়া২২৫ টাকা৩৭৫ টাকা৬৭০ টাকা
এসএইচ এম মনসুর আলী২১০ টাকা৩৪৫ টাকা৬২০ টাকা
বিবিসেতু ইস্ট১২৫ টাকা২১০ টাকা৩৭৫ টাকা
টাঙ্গাইল১০৫ টাকা১৭৫ টাকা৩১৫ টাকা
মির্জাপুর৮০ টাকা১৩০ টাকা২৩৫ টাকা
জয়দেবপুর৪০ টাকা৯০ টাকা১২০ টাকা

আমরা চিত্রা এক্সপ্রেস ট্রেনের ভাড়ার তালিকাটি আপনাদের সামনে সহজ ভাবে উপস্থাপন করেছি যাতে করে ঢাকা থেকে খুলনা পর্যন্ত চিত্রা এক্সপ্রেস ট্রেনে করে ভ্রমন করতে আপনাদের কোন রকম অসুবিধার সম্মুখীন হতে না হয়।

লালমনি এক্সপ্রেস ট্রেনের সময়সূচী ২০২৩ 

চিত্রা এক্সপ্রেস ট্রেনের বিরতি স্টেশন

আপনারা হয়তো সকলেই ট্রেনে চেপেছেন এবং আপনাদের জানা আছে, যে কোনো ট্রেন তার যাত্রাপথের সময় কিছু কিছু স্টেশনে যাত্রা বিরতি নেয়। সেই রকমই চিত্রা এক্সপ্রেস ট্রেনের বিরতি স্টেশন গুলি আমরা আপনাদের সাথে আলোচনা করব। ট্রেনের যাত্রা পথে বিরতি নেওয়ার কারণ হলো, যাতে করে অন্যান্য স্টেশনে থাকা যাত্রীগুলি উঠানামা করতে পারে, এছাড়া যদি কোন জরুরী জিনিসপত্র দরকার হয় সেক্ষেত্রে বিরতি স্টেশনে থেকে সেগুলি নেওয়া যেতে পারে। চলুন জেনে নিন চিত্রা এক্সপ্রেস ট্রেনের বিরতি স্টেশনগুলি আমরা আপনাদের সুবিধার জন্য বিরতি স্টেশন গুলির একটি তালিকার মাধ্যমে আপনাদের সামনে প্রস্তুত করেছি তালিকাটি ভালোভাবে দেখে নেবেন।

স্টেশন নামঢাকা(কমলাপুর) থেকে (৭৬৩)খুলনা থেকে (৭৬৪)
বিমান বন্দর১৯:২৭১৭:২২
জয়দেবপুর১৯:৫৫১৬:৫৯
টাঙ্গাইল২০:৫৮১৬:০৭
বিবিসেতু ইস্ট২১:২০১৫:৪৫
এসএইচ এম মনসুর আলী২১:৫৬১৪:৪৯
উল্লাপাড়া২২:১৪১৪:৩০
বড়াল ব্রিজ২২:৩৪১৪:০৯
চাটমোহর২২:৪৯১৩:৪৮
ঈশ্বরদী২৩:১৫১৩:১৫
ভেড়ামারা২৩:৫৫১২:৪৯
মিরপুর১২:৩৭
পোড়াদহ০০:১৬১২:২৪
আলমডাঙ্গা০০:৩৫১২:০৭
চুয়াডাঙ্গা০০:৫৫১১:৪৬
দর্শনা১১:২৫
কোটচাঁদপুর০১:৪১১১:০০
মোবারকগঞ্জ০১:৫২১০:৪৭
যশোর০২:২০১০:০২
নোয়াপাড়া০২:৫২০৯:৩১

তাহলে আপনারা চিত্রা এক্সপ্রেস ট্রেনের বিরতি স্টেশন গুলি সম্পর্কে জানতে পারলেন। আমাদের এই তালিকাটি দেওয়ার প্রধান উদ্দেশ্য হল ঢাকা থেকে খুলনা যাবার পথে অথবা খুলনা থেকে ঢাকা আসার পথে আপনাদের যাতে কোনোরকম অসুবিধা না হয় সেই জন্যই আমাদের এই প্রয়াস।

ট্রেনে চাপার নিয়ম

ট্রেনে চাপার আগে অবশ্যই আমাদের ট্রেনের নিয়ম কানুন গুলি জেনে রাখতে হয়। সেই নিয়মগুলি কি তা জেনে নিন..

  • প্রথমে আপনাদের বলে রাখি টিকিট ছাড়া ট্রেনে ভ্রমণ করা দণ্ডনীয় অপরাধ।
  • আপনার ট্রেনের টিকিট টি নিজের কাছে যত্ন সহকারে রাখুন যতক্ষণ পর্যন্ত স্টেশন থেকে বেরিয়ে না আসছেন।
  • আপনার মালপত্র আপনার নিজের দায়িত্বেই রাখুন।
  • অযথা ট্রেনের স্টপচেইন টানবেন না।
  • আপনার পরিচিত ব্যক্তি ছাড়া অন্য ব্যক্তির দেওয়া কোনো খাবার খাবেন না।
  • ট্রেন থেকে অযথা উঠানামা করবেন না।
  • ট্রেনের মধ্যে জ্বলনশীল বস্তু নিয়ে উঠবেন না।

শেষ কথা

প্রিয় বন্ধুগণ, আশা করি আমরা আপনাদের চিত্রা এক্সপ্রেস ট্রেনের সময়সূচী ২০২৩ এবং চিত্রা এক্সপ্রেস ট্রেনের ভাড়ার তালিকা সম্বন্ধিত পোস্টের মাধ্যমে আপনাদের গুরুত্বপূর্ণ তথ্য প্রদান করতে পেরেছি। আমরা চিত্রা এক্সপ্রেস ট্রেনের সময়সূচী বাংলাদেশ রেলওয়ে অফিসিয়াল ওয়েবসাইট থেকে সংগ্রহ করেছি। আমাদের আজকের পোস্টটি যদি আপনাদের কাছে গুরুত্বপূর্ণ মনে হয় তাহলে আপনি আপনার প্রিয়জন অথবা বন্ধুদের দের মধ্যে শেয়ার করতে পারেন। যাতে করে ঢাকা থেকে খুলনা পর্যন্ত ট্রেনে করে ভ্রমণ করতে অসুবিধা না হয়। আমরা কামনা করি আপনার যাত্রা যেন শুভ হয়।

I'm Suhana Khan, I'am a professional blogger and a teacher. I am happy to share new information and it's proud for me. I have 3 years experience of blogging.

Leave a Comment